T-shirt Design Resource File. টি-শার্ট ডিজাইন রিসোর্স ফাইল ডাউনলোড

T-shirt Design Resource File. টি-শার্ট ডিজাইন রিসোর্স ফাইল ডাউনলোড
টি শার্ট ডিজাইন এর জন্য প্রয়োজনীয় ভেক্টর ফাইল ফন্ট এবং অন্যান্য সামগ্রী আমরা কোথা থেকে ফ্রিতে ডাউনলোড করব? এই বিষয়গুলো অনেকেই জানেন না। তো তাদের জন্যই আজকে আমার এই পোষ্ট। আশা করছি পুরো পোস্টটি মনোযোগ দিয়ে পড়লে আপনারা টি-শার্ট ডিজাইন রিসোর্স ফাইল সহজেই সংগ্রহ করতে পারবেন। এছাড়াও আজকে আমার এই পোষ্টের শেষের দিকে আপনাদের জন্য একটি সারপ্রাইজ গিফট রয়েছে। আশা করছি আপনারা সেটি সংগ্রহ করবেন এবং এটাও আশা করছি পুরো পোস্ট মনোযোগ সহকারে পড়ে আমার এই পোষ্টের নিচে আপনার কমেন্ট অবশ্যই! অবশ্যই !!অবশ্যই !!! জানাবেন।

টি-শার্ট ডিজাইনের জন্য “রিসোর্স” ফাইল কি?

রিসোর্স ফাইলগুলো হল সেই ভেক্টর ফাইল, যে ভেক্টর গুলো আমরা আমাদের ডিজাইনের প্রয়োজনে ব্যবহার করে থাকি যেমন কমন একটি ভেক্টর হলো মানুষের মাথার খুলি বা স্কাল তো আমরা যদি একটি মানুষের মাথার খুলি আঁকতে যাই তাহলে আমাদের অনেক সময় ব্যয় হবে। অনেকেই হয়তো আমরা এই মানুষের মাথার খুলির ভেক্টর আঁকতে পারবো না। তো এজন্য আমরা যদি ইন্টারনেটে সার্চ করি তাহলে এরকম অনেক ভেক্টর পেয়ে যাব। যেগুলো সামান্য পরিবর্তন করে আমরা আমাদের ডিজাইন এ ব্যবহার করতে পারব। তবে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে যেন আমরা যে ব্যাক্তি ফাইলগুলো ব্যবহার করছি সেগুলো যেন “ফ্রি” হয় অথবা এগুলো ব্যবহারের অনুমতি থাকে। অনেক ভেক্টর আছে যেগুলো প্রিমিয়াম, টাকা দিয়ে কিনে ব্যবহার করতে হয় আমরা সেগুলো অবশ্যই কিনে ব্যবহার করব। আর যদি কিনে ব্যবহার করতে না পারি তাহলে সেগুলো ব্যবহার করব না। আমরা এক কথায় বলতে পারি আমাদের ডিজাইনের প্রয়োজনীয় যাবতীয় ভেক্টরকে “রিসোর্স” বলা যায়।

বর্তমান মার্কেটপ্লেসগুলোতে টি-শার্ট ডিজাইন এর চাহিদা কেমন?

আপনারা জানেন এই করোনাকালীন সময়ে অনেক নতুন ফ্রিল্যান্সার তৈরি হয়েছে। যারা বিভিন্ন ট্রেনিং সেন্টার অথবা নিজে নিজে গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজ শিখেছে। একটা জিনিস খেয়াল করে দেখবেন যে বেশির ভাগ ফ্রিল্যান্স গ্রাফিক্স ডিজাইন নিয়ে কাজ শুরু করেছে। সুতরাং বোঝাই যাচ্ছে যে অনেক নতুন কম্পিটিটর তৈরি হয়েছে। তবে আপনার যদি স্কিল থাকে তাহলে আপনার জন্যে কাজ পাওয়া খুবই সহজ। এক্ষেত্রে যারা নতুন গ্রাফিক্স ডিজাইন নিয়ে কাজ করতেছে তারা বেশিরভাগই লোগো, ফ্লায়ার, ভিজিটিং কার্ড এই বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করে। নতুনরা টি-শার্ট ডিজাইন নিয়ে বেশি আগ্রহ দেখায় না। কারণ টি-শার্ট ডিজাইন একটু কঠিন মনে হয় নতুনদের কাছে। এজন্যই টি-শার্ট ডিজাইন এর কম্পিটিটর কিছুটা কম। আপনি যদি টি-শার্ট ডিজাইন নিয়ে ভালোভাবে কাজ করতে পারেন তাহলে গ্রাফিক্স ডিজাইনে অন্যান্য যে শাখা আছে সেগুলোর চেয়ে টি-শার্ট ডিজাইন বেশি পরিমাণে ইনকাম রয়েছে। টি-শার্ট ডিজাইন ভবিষ্যৎ অনেক ভালো আমার মনে হয়।

কোথায় টি শার্ট ডিজাইন শিখব?

বর্তমান সময়ে গ্রাফিক্স ডিজাইন বা ফ্রিল্যান্সিং শেখার জন্য অনেক নতুন আইটি সেন্টার তৈরি হয়েছে। তবে আমি মনে করি গ্রাফিক্স ডিজাইন বা ফ্রিল্যান্সিং শেখার জন্য কোন আইটি সেন্টার এর প্রয়োজন নেই। আপনি যদি আগ্রহী হয়ে থাকেন তাহলে ইউটিউবে অনেক ভালো ভালো টিউটরিয়াল রয়েছে যেগুলো দেখে দেখে আপনি শিখতে পারবেন। টি শার্ট ডিজাইন শেখার জন্য ইতিমধ্যেই ইউটিউবে প্রচুর টিউটোরিয়াল রয়েছে। অনেক ভালোভাবে আপনি টি-শার্ট ডিজাইন শিখতে পারবেন। এছাড়াও আমাদের একটি ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে যার নাম হল “UNIQUE ZONE ” আপনি এখান থেকেও টি শার্ট ডিজাইন শিখতে পারবেন। আমাদের প্রতিটি টিউটোরিয়াল বাংলা ভাষায় সহজভাবে বুঝানো হয়েছে। এছাড়াও প্রতিদিন এখানে ভিডিও আপলোড করা হয়। সুতরাং আপনি যদি আমাদের চ্যানেলটি ফলো করেন তাহলেও আপনি টি-শার্ট ডিজাইন শিখতে পারবেন। এছাড়াও আরো অন্যান্য ভালো ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে সেগুলো ফলো করতে পারেন টি শার্ট ডিজাইন শেখার জন্য আপনাকে কোন ট্রেনিং সেন্টারে ভর্তি হতে হবে না।

কোন মার্কেটপ্লেসগুলোতে টি শার্ট ডিজাইন এর কাজ বেশি পাওয়া যায়?

গ্রাফিক্স ডিজাইনের জন্য বর্তমান সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় কয়েকটি সাইট হল ফাইবার, ফ্রিল্যান্সার, আপওয়ার্ক, পিপল পার আওয়ার এবং এরকম আরো বেশ কিছু সাইট আছে যেগুলোতে আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইন সার্ভিস সেল করতে পারবেন। এখন কথা হচ্ছে আপনি কি নতুন ? নাকি আপনার স্কিল আছে? যদি আপনি নতুন হয়ে থাকেন তাহলে আমি বলব কোন মার্কেটপ্লেসে এখনই অ্যাকাউন্ট খুলবেন না। আর যদি মনে করেন আপনার স্কিল আছে এবং বায়ার অর্ডার দিলে সেই অর্ডার কমপ্লিট করতে পারবেন তাহলে প্রথম অবস্থায় আপনি ফ্রিল্যান্সার অ্যাকাউন্ট খুলুন। যদি আপনি প্রাথমিক অবস্থায় হয়ে থাকেন তাহলে ফ্রিল্যান্সারে কনটেস্ট করে আপনার স্কিল ডেভেলপ করতে পারবেন। বায়ারের চাহিদাগুলো আপনি বুঝতে পারবেন। তো আমি আপনাকে পরামর্শ দিব যদি আপনি নতুন হয়ে থাকেন তাহলে ফাইবার আপওয়ার্ক বা অন্যান্য মার্কেটপ্লেসে একাউন্ট না খুলে আপনি ফ্রিল্যান্সার অ্যাকাউন্ট খুলুন এবং সেখানে কনটেস্ট করে থাকুন যে সময় আপনি পাঁচ-ছয়টা কনটেস্ট জিতে যাবেন তখন আপনি অন্য অন্য অ্যাকাউন্ট খুলবেন।

এখন বলেন ফ্রী রিসোর্স কোথায় পাবো?

আমাদের মত সাধারন ডিজাইনারদের জন্য কিছু দরদী ওয়েবসাইট রয়েছে যে ওয়েবসাইটগুলো আমাদেরকে সীমিত সংখ্যক রিসোর্স ফাইল ডাউনলোড করার সুযোগ দিয়ে আমাদের ধন্য করে থাকে। সেরকম কিছু সাইটের লিস্ট আমি আপনাদেরকে দিয়ে দিচ্ছি সেখান থেকে আপনারা প্রয়োজনীয় ফন্ট,ভেক্টর ফাইল, অর্নামেন্ট ডাউনলোড করতে পারবেন।

  1. Freepik
  2. Vexels
  3. Vecteezy
  4. Shutterstock
  5. Vectorportal
  6. Flaticon
  7. Iconfinder
  8. Dryicons
  9. Freedesignfile
  10. IStock

এই সাইটগুলো থেকে আপনারা প্রয়োজনীয় ভেক্টর, ফটো, এমনকি ভিডিও ক্লিপও ডাউনলোড করতে পারবেন। তবে কিছু ওয়েবসাইটে আপনাকে টাকা দিয়ে কিনে ডাউনলোড করতে হবে।

সারপ্রাইজ রিসোর্স ফাইলগুলো কোথায়?

এখন আসল কথায় আসি 🙂 আপনারা যদি আমার ইউটিউব চ্যানেল থেকে এসে থাকেন তাহলে আপনাদেরকে স্পেশাল ধন্যবাদ। তবে আপনাদের কাছে অনুরোধ এই পোস্ট পুরোটা পড়ে আপনারা কমেন্ট বক্সে আপনাদের মতামত জানাবেন। আমি যে ব্যক্তি ফাইলগুলো আপনাদেরকে দেবো সেগুলো আমি বিভিন্ন ওয়েবসাইট থেকে বিভিন্ন বড় ভাইদের কাছ থেকে সংগ্রহ করেছি। এখানে অনেকগুলো ফন্ট আছে। আপনারা একসাথে সবগুলো ভেক্টর ফাইল পাবেন এটা বেশ বড় একটা ফাইল প্রায় দেড় জিবি মত। অল্প অল্প করে আপনারা ডাউনলোড করতে পারবেন। আশা করি এই ভেক্টর ফাইল গুলো আপনাদের বেশ উপকারে আসবে। আপনাদের কাছে অনুরোধ হলো আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করে রাখবেন এবং আমাদের এই ওয়েবসাইটটি মাঝে মাঝে ভিজিট করবেন। কারণ এই ওয়েবসাইটটি শুধুমাত্র আপনাদের হেল্প করার জন্য তৈরি করা হয়েছে। এখানে ফ্রিল্যান্সিং এর সবকিছু নিয়ে আলোচনা করা হবে। আমি খুব শীঘ্রই ফাইবার রিলেটেড একটি সিরিজ শুরু করব এই ওয়েবসাইটে। ধারাবাহিকভাবে আলোচনা করব কিভাবে একটি ফাইবার একাউন্ট কিভাবে তৈরি করতে হয় সবগুলো বিষয় নিয়ে আলোচনা করব আশা করছি এই ওয়েবসাইটের সাথে আপনারা থাকবেন।

আমার পরামর্শ

আপনারা যারা নতুন গ্রাফিক্স ডিজাইন নিয়ে কাজ করছেন বা শিখছেন তাদের কাছে আমার অনুরোধ অনুগ্রহ করে হতাশ হয়ে যাবেন না। এটা এমন একটি জায়গা এখানে হতাশ হলেই আপনি আর এগোতে পারবেন না। সুতরাং আপনি যে বিষয়টি নিয়ে কাজ করেন সেটা হতে পারে লোগো ডিজাইন, টি-শার্ট ডিজাইন, ব্রুশিয়ার ডিজাইন, ফ্লায়ার ডিজাইন যাই হোক না কেন। যে কোন একটি বিষয় টার্গেট করে কাজ করতে থাকুন। আপনি যদি টি-শার্ট ডিজাইন নিয়ে কাজ করতে চান তাহলে শুধুমাত্র টি-শার্ট ডিজাইন টার্গেট করুন। তাহলে সফলতা খুব তাড়াতাড়ি আসবে। আপনি যদি লোগো নিয়ে কাজ করতে চান তাহলে শুধুমাত্র লোগোর দিকে ফোকাস করুন তাহলে সফলতা তাড়াতাড়ি আসবে। আশা করছি বিষয়টি বুঝতে পেরেছেন। আমি টি-শার্ট ডিজাইন নিয়ে কাজ করি এবং আপনাদেরকে আমার ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে আমি যতোটুকু জানি আপনাদেরকে শেখানোর চেষ্টা করি। জানিনা কতটুকু শেখাতে পেরেছি, তবে আমি চেষ্টা করছি আপনাদের ভালোর জন্য। আমার জন্য দোয়া করবেন, আমিও আপনাদের জন্য দোয়া করি। ইনশাআল্লাহ আমাদের সাথে ভালো কিছুই হবে।